হোয়াটাবাউটারি, ওরফে তার বেলা?

--- হতভাগা বিনয়কুমারটা গাধার মত নোবলটা করে খেলাটাকে একদম চটকে চুয়াল্লিশ করে দিল মাইরী। . --- বিনয়কুমার খারাপ বল করেছে বুঝলাম, কিন্তু সেই যে ছিয়াশি সালে চেতনশর্মা লাস্ট বলে ফুলটস দিল, তার বেলা?...

Advertisements

কালোগর্তের সংক্ষিপ্ত ইতিহাস : ইহোজগতের ইতিকথা

কালোগর্ত বা ব্ল্যাকহোল একটি অতি পুঁদিচ্চেরী ব্যাপার। গত ১৪ই মার্চ স্টিফেন হকিং মারা যাবার পর ব্ল্যাকহোল নিয়ে জনতার অাগ্রহ খানিক বেড়েছিল। মুশকিল হল, জিনিসটা অাসলে কী, খায় না মাথায় দেয়, সেটা অনেকেই জানে না। সোঘো এই চারটে কিস্তিতে কালোগর্তের কী-কেন-কবে-কোথায় ইত্যাদি ঘটিবাটীয় ভাষায় ব্লগস্থ করার চেষ্টা করবে। দ্বিতীয় কিস্তিতে ইভেন্ট হোরাইজন, গ্র্যাভিটেশনাল রেডশিফ্ট, টাইডাল ফোর্স, নো-হেয়ার থিওরেম হয়ে ব্ল্যাকহোলের এরিয়া ফর্মুলা পেরিয়ে এন্ট্রপির সামনে এসে থামবে।

কালোগর্তের সংক্ষিপ্ত ইতিহাস : নিউটন, অাইনস্টাইন, ও শোয়ারৎস্চাইল্ড

কালোগর্ত বা ব্ল্যাকহোল একটি অতি পুঁদিচ্চেরী ব্যাপার। গত ১৪ই মার্চ স্টিফেন হকিং মারা যাবার পর ব্ল্যাকহোল নিয়ে জনতার অাগ্রহ খানিক বেড়েছিল। মুশকিল হল, জিনিসটা অাসলে কী, খায় না মাথায় দেয়, সেটা অনেকেই জানে না। সোঘো এই চারটে কিস্তিতে কালোগর্তের কী-কেন-কবে-কোথায় ইত্যাদি ঘটিবাটীয় ভাষায় ব্লগস্থ করার চেষ্টা করবে। প্রথম কিস্তিতে নিউটন থেকে শুরু করে অাইনস্টাইন, জেনারেল রিলেটিভিটি, ও শোয়ারৎস্চাইল্ডের সল্যুশন পার হয়ে ব্ল্যাকহোল অবধি এসে থামবে।

কাওয়াই দ্বীপের রহস্য : বিবাহবিভ্রাট, বিস্তার, বিবর্তন

হাওয়াইয়ের কাওয়াই দ্বীপের পুরুষঝিঁঝিরা সাইলেন্ট ক্যামুফ্লেজ করে ভয়ঙ্কর ওর্মিয়া ওক্রাচিয়া মাছির হাত থেকে রক্ষা তো পেল, কিন্তু শেষমেশ তাদের বিয়েথা হবে তো? পারবে কী তারা তাদের এই লুকাছুপি দেশেবিদেশে ছড়িয়ে দিতে? জানতে চাইলে পড়ে চলুন।

কাওয়াই দ্বীপের রহস্য : ঝিঁঝিদের নিঃশব্দ বিপ্লব

ওর্মিয়া ওক্রাচিয়া মাছির দৌরাত্ম্যে হাওয়াই দ্বীপপুঞ্জের কাওয়াই দ্বীপের ঝিঁঝিরা লুপ্ত হতে হতে কীভাবে ব্রেক মেরে অ্যাবাউট টার্ন করে সাইলেন্ট রানিং শুরু করেছেন, জানতে পড়ে চলুন।

বৈদ্যবাটী : জিরোভূত ১ : হের হিলবার্টের হোটেল

এটা জিরোভূত সিরিজের প্রথম লেখা। রিক্যাপ : পুলি সকালে স্লো-সাইকেল রেস করতে গিয়ে পড়ে গিয়ে মাথায় চোট পেয়ে কলেজ না গিয়ে বাড়ি অাছে। ডক্টর বৈদ্য পুলিকে সকালে ভারকেন্দ্র ও টর্ক বুঝিয়েছেন। তারপর পুলির খিদে পেয়ে যাওয়াতে সে ডিম সেদ্ধ করে খেয়ে মা'র অাদেশে রেস্ট নিচ্ছে। ডক্টর বৈদ্য নিজের স্টাডিতে ফিরে তাঁর ই-বাটল্যর জীভসের সাহায্যে পেপার শুনছেন। এই করতে করতে লাঞ্চের সময় হয়ে গেছে। পুলির ফের খিদে পেয়েছে, সে মা'র অনুমতি নিয়ে টেবিলে খাবার সাজিয়েছে। মা-মেয়ে মিলে খেতে বসেছে।