…ক্রিং ক্রিং…ক্রিং ক্রিং…

— হ্যালো। এবিপি।
— একটি অ্যাড দেওয়ার ব্যাপারে কিছু কথা বলতে চাই।
— ক্ল্যাসিফায়েড না ডিসপ্লে?
— অাপনাদের ফ্রন্ট পেজে উপরের কর্নারে যে অ্যাডটা থাকে…
— ও, ইয়ার প্যানেল। ধরুন অাপনাকে অ্যাড সেকশনে ট্রানসফার করছি।

…ক্রিং ক্রিং…ক্রিং ক্রিং…

— হ্যালো। এবিপি।
— নমস্কার। একটা অ্যাডের ব্যাপারে কিছু ইঙ্কোয়ারি অাছে। অাপনাদের ফ্রন্ট পেজে ইয়ার প্যানেল…
— ওটা অামাদের এখানকার ডিপার্টমেন্ট না। অামি কলটা লাগিয়ে দিচ্ছি।

…ক্রিং ক্রিং…ক্রিং ক্রিং…

— নমস্কার।
— লাইনে থাকুন। ট্রান্সফার করছি।

…ক্রিং ক্রিং…ক্রিং ক্রিং…

— হ্যালো।
— হ্যালো এবিপি ডিসপ্লে অ্যাড সেকশন?
— বলছি।
— অামি একটা অ্যাডের ব্যাপারে ফোন করছি। কিছু তথ্য জানার ছিল।
— কী অ্যাড বলুন তো।
— ডিসপ্লে অ্যাড। ফ্রন্ট পেজ। ইয়ার প্যানেল…
— ও ওটা অামি দেখি না। যে দেখে তাকে দিচ্ছি। ধরে থাকুন।

…ক্রিং ক্রিং…ক্রিং ক্রিং…
…ক্রিং ক্রিং…ক্রিং ক্রিং…
…ক্রিং ক্রিং…ক্রিং ক্রিং…

— হ্যালো। এবিপি অ্যাডস।
— একটা কথা মন দিয়ে শুনুন। একবারই বলব। মন দিয়ে শুনবেন।
— অাপনি কে…?
— শ্শ্শ্। মন দিয়ে শুনুন। অামি কথা বলব। অাপনি শুনবেন। অামি একটা অ্যাড দিতে চাই। অাপনার কাগজে। ফ্রন্ট পেজে। ডিসপ্লে অ্যাড। ইয়ার প্যানেল। বুঝলেন?
— …
— অামি প্রশ্ন করলে জবাব দেবেন। বুঝলেন কী বললাম?
— হ্যাঁ।
— অাপনিই কি ইয়ার প্যানেল সামলান?
— না।
— কে সামলায়?
— পিকেদা।
— তিনি কোথায়?
— লাঞ্চ করতে গেছেন।
— বেশ। অাপনাকে ইনস্ট্রাকশন দিয়ে দিচ্ছি। অাপনি পিকেদাকে বোঝাবেন। বুঝলেন?
— হ্যাঁ।
— অামার ইয়ার প্যানেলের অ্যাড চাই। পাঁচ দিন ধরে রোজ। দুদিকেই চাই, লেফ্ট অ্যান্ড রাইট। সাইজ কত?
— সাড়ে চার বাই তিন। সেন্টিমিটার।
— বেশ। অাপনার পিকেদার ইমেল দিন।
— প্রদীপ দাস অ্যাট দ্য রেট এবিপি ডট ইন। পি-অার-এ-ডি-অাই-পি-ডট-ডি-এ-এস-অ্যাট-এ-বি-পি-ডট-ইন।
— বেশ। অামি ওনার ইমেল-এ অ্যাডের ছবিটা পাঠিয়ে দিচ্ছি। রেটটা অামাকে উনি মেলব্যাক করবেন, সঙ্গে পেমেন্ট ডিটেল্স। অামি টাকা পাঠিয়ে দেব। কাল থেকে অ্যাড চাই অামার। কীভাবে করবেন সেটা অাপনি বুঝবেন। বুঝলেন?
— হ্যাঁ।
— গুড।
* * *

— নমস্কার ডক্টর বৈদ্য।
— নমস্কার মিঃ সেন। কী খবর? অাপনার মাইগ্রেনটা কেমন অাছে?
— অান্ডার কন্ট্রোল, থ্যাঙ্কস টু ইউ।
— গুড। হুইস্কিটা কাট ব্যাক করেছেন?
— অ্যাজ ইউ ইন্সট্রাকটেড। অা পেগ এভেরি টু ডেজ।
— গুড। রিপোর্ট তো ভালই দেখছি। ইউ অার অন দ্য ওয়ে টু রিকাভরি। এক্সেলেন্ট।
— অল বিকজ অফ ইউ…
— প্লীজ মিঃ সেন। অাপনি জানেন অামি প্রেজ লাইক করি না। অাই হ্যাভ ডান মাই জব টু অাওয়ার মিউচুয়াল স্যাটিসফ্যাকশন।
— ওয়ান হান্ড্রেড পার্সেন্ট।
— গুড। ওটা কি অাজকের অানন্দবাজার?
— ইয়েস। বাইরে বিক্রী হচ্ছিল। অাই টুক ইট।
— অামার অাজ সকাল থেকে কাগজ পড়ার সময় হয়নি…জাস্ট এ মিনিট, অাপনি তো বাংলা স্ক্রিপ্ট পড়তেই পারেন না।
— ইয়েস। অাই ওয়াজ বর্ন অ্যান্ড ব্রট অাপ ইন ডেলহি…
— জানি। অাপনার হাতে বাংলা কাগজ?
— ইয়েস। দিস অ্যাড অ্যাট্র্যাক্টেড মী। দিস ওয়ান অন দ্য ফ্রন্ট পেজ, কর্নার।
— ইয়ার প্যানেল।
— মেবী, অাই ডু নট নো। অাই হ্যাড টু বাই দ্য পেপার। হোয়াট অ্যান অ্যাট্র্যাকটিভ অ্যাড।
— দেখি কাগজটা…এটা কীসের অ্যাড? কিছুই তো নেই। একটা ব্ল্যাঙ্ক রেক্ট্যাঙ্গেল, অার এক কোণে একটা কিউ-অার কোড। এটা স্ক্যান করেছেন নাকি?
— মাই ফোন ইজ অাউট অফ চার্জ। বাট সামউয়ান ইন দ্য ওয়েটিং রুম ওয়াজ সেয়িং ইট ইজ অ্যান অ্যাড ফর অ্যান অ্যাপ।
— স্মার্টফোন অ্যাপের অ্যাড?
— ইয়েস। হি সীম্ড টু হ্যাভ ইনস্টল্ড দ্য অ্যাপ।
— কী করে অ্যাপটা? দেখলেন?
— ইট ডাজ নাথিং মাচ। অাই ওয়াজ রাদার ডিসাপয়েন্টেড।
— অাপনি দেখলেন?
— অাই জাস্ট টুক অা গ্লান্স অ্যাট ইট। ইট সীম্স টু বি সাম কাইন্ড অফ ওয়ালপেপার অর স্ক্রীনসেভার। ইউ অ্যাক্টিভেট দ্য অ্যাপ অ্যান্ড ইয়োর স্ক্রীন চেঞ্জেস টু বেসিকালি অা বিগার ভার্সান অফ দিস ইয়ার প্যানেল অ্যাড। মাস্ট বী অা স্ক্রীনসেভার।
— মিঃ সেন। অাপনি ঠিক দেখেছেন? এই ইয়ার প্যানেল অ্যাডটার মত হয়ে যায়? পুরো স্ক্রীনটা?
— দ্য এন্টায়ার স্ক্রীন।
— মানে ঠিক এই রঙটা?
— ইয়েস। এ ভেরি অড শেড অফ…
— হলুদ। বুঝেছি। মিঃ সেন, অাপনি এই কাগজটা অামার কাছে রেখে যেতে পারবেন?
— মিঃ সেন, অাপনি এই কাগজটা অামার কাছে রেখে যেতে পারবেন?
— বাট অাই বট ইট। অাই নীড টু সী দ্য অ্যাড। অাই নীড টু ডাউনলোড দ্য অ্যাপ। অাই মাস্ট।
— মিঃ সেন, এদিকে দেখুন। এটা কী?
— অা পীস অফ গ্লাস। প্রব্যাবলি পার্ট অফ অা গ্রীন বটল্।
— অাপনি এবার রেখে যেতে পারবেন কাগজটা?
— অামি…ইয়েস, অাই ক্যান।
— অাপনার অার কোন প্রয়োজন অাছে অ্যাপটা ডাউনলোড করার?
— না…নো।
— গুড। অাপনি এবার অাসুন, অামাকে একটা কল করতে হবে। অামি এই অাশঙ্কাই করছিলুম। হি হ্যাজ স্টেপ্ড অাপ হিজ গেম।

সোমদেব ঘোষ, ডিসেম্বর মাস, সন ২০১৫, কলিকাতা শহর।


হলুদ সিরিজের চতুর্থ কিস্তি। না, এটা হলুদ পাঁচ-ই, নামকরণে ভুল নেই। কারণ অাছে। ক্রমশ প্রকাশ্য।

হলুদ এক
হলুদ দুই
হলুদ তিন

Advertisements

8 thoughts on “হলুদ পাঁচ : অ্যাড

    1. এগুলো কিন্তু একটা সিরিজ ভেবে লেখা, এবং একটা ক্রোনোলজিকাল ব্যাপার অাছে।

      Suspense-এর কোন ভাবানুবাদ হয় বলে তো জানি না। বাংলাতেও ওই সাসপেন্সই বলে।

      Like

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s