— অারে নমস্কার নমস্কার।
— সালাম অালেকিউম। অাপনারা?
— এটা ভট্টি ধিলওয়ান জনপদ তো?
— জনপদ?
— ওই হল, গ্রাম টাইপের ব্যাপার। পাকিস্তানে অাছেন তো, এত খুঁতখুঁত কেন?
— অাপনারা কে? কী চাই?
— অামরা “দু-মিনিটে কার্যোদ্ধার” নামক কোম্পানী থাকে অাসছি।
— কী কোম্পানী?
— অামরা স্বাদ তৈরী করি। অাপনাদের প্রতিবেশী দেশের লোকেদের তো অামাদের ছাড়া চলেই না।
— তাই নাকি? বলতে পারবো না। যাই হোক, অাপনারা অতিথি, বসুন, কিছু জলখাবার…
— খাবার তো বটেই, অানুন অানুন, কিন্তু জল নয়।
— জল নয়?
— মাথা খারাপ নাকি? অাপনাদের এই তৃতীয় বিশ্বের জল খেয়ে মরি অার কি। অার তাও তো অাপনারা পাম্প-টাম্প করে তোলেন…কত গভীর যেন পাম্প…?
— ১০০ ফুট।
— হ্যাঁ হ্যাঁ, একশো ফুট। সেই জল খেয়ে বাচ্ছাদের নিশ্চই পেট খারাপ হয়, ঠিকমতো পুষ্টি-ফুষ্টি হয় না। মিনারেল নেই তো। মিনারেল না থাকলে চলে?
— পেট খারাপ…কই না তো? বাচ্ছারা তো দিব্যি অাছে, খেলাধুলো করে, ভালই তো অাছে।
— অারে ধুর মশাই, এই দেখুন অামাদের পি-অার টীম বলছে…
— কী টীম?
— পি-অার। পাব্লিক রিলেশানস।
— তাই? অামি জানতুম পিওর রাহাজানি…
— ঠিক ধরেছেন, পিওর। অাচ্ছা অাপনার কি মনে হয় না লাইফ শুড বী পিওর? তাই জন্যই অামরা নিয়ে অাসছি এমন একটা প্রোডাক্ট যাতে লাইফ বিকাম্স পিওর অ্যান্ড হেলিশ…
— হেভেনলি হবে বোধহয।
— হেভেনলি? ও হ্যাঁ, তাই তো, থ্যাঙ্কু। এক মিনিট, একটা ফোন করে নি…হ্যাঁ, পিটার বলছি, এইটা যে লিখেছে তাকে বিদেয় করো…হ্যাঁ, কী যেন বলছিলুম, ও হ্যাঁ, পিওর অ্যান্ড হেভেনলি…
— কী করতে চাইছেন খুলে বলবেন?
— সিম্পল। অামরা এখানে একটা ওয়াটার ট্রীটমেন্ট প্লান্ট খুলবো, অাপনাদের মাটির জল টেনে নিয়ে অামাদের পেটেন্ট করা মিনারেল মেশাবো, তারপর বোতলে পুরবো, তারপর বিক্রী করবো।
— কোথায় বিক্রী করবেন?
— কেন, এখানেই?
— অার দাম দিয়ে অাপনাদের বোতলের জল লোকে কিনবে কেন? এখন তো বিনাপয়সায় পাচ্ছে।
— কী মুশকিল, এটুকু বুঝলেন না? অামরা অতটা জল টানলে অাপনাদের জলের লেভেল অার ১০০ ফুটে থাকবে, হবে ৩০০-৪০০ ফুট। অার জলটা হবেও নোংরা, পানের অযোগ্য। সমঝা?
— বুঝলাম। তা অামরা এটা অাপনাদের করতে দেবো কেন শুনি?
— দেবো কেন? হা হা হা, শোন বুড়োর কথা। তোদের দেওয়ার অপেক্ষা অামি করবো? অামি, পিটার ভগীরথ, “দু-মিনিটে” গ্রুপের কর্ণধার? ওরে গর্দভ, চেয়ে দেখ, কারখানা তৈরী, জল অামার হাতের মুঠোয়। মানবাধিকার? ছোঃ। ওয়াটার ইজ এ কমোডিটি, জেনে রাখ। দেখ না, বিশ বছর বাদে কি একশো, অামারই মতো কারুর হাতে থাকবে পৃথিবীর সমস্ত জলের কন্ট্রোল। অ্যাটলাস উইল শ্রাগ, শুনে রাখ।

সোমদেব ঘোষ, জানুয়ারি মাস, সন ২০১৬, কলিকাতা শহর।

Advertisements

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s