— পীপলি লাইভ মুভি দেখেছেন ঘোসবাবু?
— দেখেছি বৈকি। চেন্নাই থাকাকালীনই দেখেছি। জনাকয়েক গিছলুম। ট্যাক্সি পেতে যা দুর্ভোঘ হযেছিন কী বলবো। শেষে…
— অাঃ, হামি অাপনার ট্র্যাভেল ট্র্যাভেইল্স শুনতে অাসি নি ঘোসবাবু। মুভির প্লট ইয়াদ অাছে কিনা বলেন।
— তা একটু মনে অাছে বটে। ওই তো, ওই চাষী টাকা পাবে বলে অাত্মহত্যার চেষ্টা করছিল। তারপর সব মিডিয়া-টিডিয়া এসে গেল।
— মিডিয়া সার্কাস হুয়া। হাঁ, ইয়াদ হ্যায় অাপকো। গুড। অখবার রীড করেছেন অাজ?
— করেছি তো। লিখলামও তো তাই পড়েই। ওই যে ছোট্ট ডলফিনটি। ইশশ, কোন মানে হয় বলুন? নিষ্ঠুর নির্দয় মানুষ সব।
— ডলফিন নিয়ে তো রাইট করলেন, হিউম্যান নিয়ে কেয়া হো রহা হ্যায় দেখেছেন?
— ওঃ, ওই যাদবপুর-জেএনইউ তো? পড়বো না? সকলেই তো ওই নিয়েই কথা বলছে।
— হাঁ, সব লোগ উও ইস্যু লেকর বাত কর রহেঁ হ্যাঁয়। সহী বাত। লেকিন অখবার মে অাজ দুসরা এক খবর ভী অায়া হ্যায়, অাপকা বঙ্গালি অানন্দবজার মে। ফার্স্ট পেজ, দেখা অাপনে?
— কোন খবরটা বলুন তো? অাজ পুরোটা দেখা হয়নি ঠিকমতো।
— পীপলি লাইভ মে দিখাতা হ্যায় কি কিসান লোগ খুদকুশী কর রহে হ্যাঁয়, ইস লিয়ে কি খুদকুশী কে বাদ উনকা পরিভার কো সরকার রীলিফ দেতা হ্যায়। রীলিফ মতলব বংলা মে…
— ক্ষতিপূরণ?
— হাঁ হাঁ, উও হী।
— শুনেছি তো। খুবই দুঃখের ব্যাপার। অন্ধ্রপ্রদেশে একবার অনেক কৃষক অাত্মঘাতী হয়েছিল না?
— অন্ধ্র কিঁউ, পুরা দেশ মে হী চলতা রহতা হ্যায়, হর ওয়াক্ত। অাপকো মালুম হ্যায়, লাস্ট এক মহীনে মে হী মরাঠওয়াড়া মে, মতলব মহারাষ্ট্র কা এক রিজিয়ন মে, এক সো চৌবীস ফার্মার সুইসাইড কীয়ে হ্যাঁ?
— বলেন কী? ১২৪ জন স্রেফ গত মাসে?
— সির্ফ লাস্ট মান্থ মে। মতলব ডেলি চার বেচারে খুদখুশি কর রহে হ্যাঁয়। অাউর হম ঠরে হ্যাঁ দোসো সাত ফুট কি চক্কর মে।
— ২০৭ ফুট? মানে ওই বিশ্ববিদ্যালয়ে পতাকা উত্তোলনের ঘটনাটি?
— হাঁ ঘোসবাবু হাঁ। সব নম্বর হ্যায় ঘোসবাবু, সব নম্বর হ্যায়। ২০৭। ১২৪। মা খু চিহল ও পঞ্জম হস্তম।
— দেশে বিদেশে? সৈয়দ মুজতবা?
— অারে ওয়াহ, ইযাদ হ্যায় অাপকো? বহুত খূব।
— কিন্তু এই যে ১২৪ জন অাত্মঘাতী হলেন, সরকার কিছু করছে না? এটা তো মহারাষ্ট্র সরকারের কাজ, তাই না?
— নর্থ মুম্বই কা এমপি নে কেয়া কহা হ্যায় মালুম হ্যায়?
— উত্তর মুম্বইয়ের সাংসদ? কে তিনি?
— নাম সে কেয়া ঘোসবাবু, অখবার মে দেখ লেনা। উনহোনে কহা হ্যায় কি ইয়ে জো ফার্মার সুইসাইড কর রহে হ্যাঁয়, ইসকা কারণ ভুখ ইয়া অানএমপ্লয়মেন্ট নেহী হ্যায়, ইয়ে অব তো ফ্যাশন বন গেয়া হ্যায়।
— বলেন কী? ফ্যাশন? না খেতে পেয়ে লোকে মারা যাচ্ছে, নিজেদের প্রাণ নিতে বাধ্য হচ্ছে, অার ইনি বলছেন ফ্যাশন?
— ফ্যাশন ঘোসবাবু। ইয়ে হ্যায় ফ্যাশন। খুদকুশি করনা ফ্যাশন হ্যায়।
— অার অামরা কিনা ২০৭ নিয়ে মারমারকাটকাট চালাচ্ছি।
— বোলা না ম্যায়, সব নম্বর হ্যায় ঘোসবাবু। ইয়ে অনোখী দুনিয়া মে, ফ্যাশন হ্যায় ভাই, সব নম্বর হ্যায় সব ফ্যাশন হ্যায়।
— অার পীপলি?
— ডেড, ঘোসবাবু, পীপলি ইজ ডেড।
সোঘো, রাত পৌনে এগারোটা, উনিশে ফেব্রুয়ারী, ২০১৬ সাল, কলিকাতা শহর।
Advertisements

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s